ওয়েবসাইটে ভিজটর বাড়ানোর ৭ টি উপায় – Todaytrick

ওয়েবসাইট এর জন্য ভিজিটর আর দোকানের জন্য কাস্টমার দুটোই গুরুত্বপূর্ণ। একটা দোকানে পণ্য আছে কিন্তু কাস্টমার নেই তাহলে দোকানের মালিক কখনো লাভবান হবেন না। অন্যদিকে আপনার ওয়েবসাইট এ কনটেন্ট আছে কিন্তু ভিজিটর না থাকে তাহলে আপনার পরিশ্রম সব বৃথা এবং আপনিও লাভবান হবেন না।

নতুনরা ওয়েবসাইটটে কাজ শুরু করার পর যেটার দিকে বেশি গুরুত্ব দেন তা হলো ভিজিটর। কিন্তু তারা সঠিক পদ্ধতি গুলো না জানায় ভিজিটর নিয়ে আসতে পারে না।

আজকের এই আর্টিকেল এ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব ৭টি পদ্ধতি ওয়েবসাইটটে ভিজিটর বাড়ানোর এবং পাশাপাশি কিভাবে ভিজিটর গুলোকে ধরে রাখবেন।

প্রথমে জানব।

কিভাবে সাইটে ভিজিটর বাড়াবেন।

সাধারনত, আপনার ওয়েবসাইটটি যেহেতু নতুন তাই আপনার সাইটটি সম্পর্কে তেমন কেউ জানে না অথবা কেউ জানে না যে আপনার সাইটে গেলে আমি এই বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে পারব। এজন্য আপনাকে বিভিন্ন উপায়ে আপনার সাইটটি সম্পর্কে সবাইকে জানাতে হবে। জেনে নিই ৭ টি সহজ উপায় সম্পর্কে।

১. এসইও করা

একটা ওয়েবসাইটে ভিজিটর বাড়ানোর জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হল এসইও (সার্চ ইজ্ঞিন অপ্টিমাইজেশন)। আমরা সাধারনত কোন তথ্য বা কোন বিষয়ে জানার জন্য ঐ কিওয়ার্ডটি (যা সার্চ বক্সে লেখা হয়। তাই কিওয়ার্ড) লিখে সার্চ করি। এরপর আমাদের সামনে অনেক রেজাল্ট চলে আসে। রেজাল্ট গুলো থেকে প্রথম ২-৩ টা রেজাল্ট আমরা দেখি।

একটা বিষয় খেয়াল করুন। আপনার সার্চ করা বিষয়ের উপর অনেক সাইটেই গাইডলাইন আছে। অনেক ব্লগে আর্টিকেল আছে। এখন কিছু ওয়েবসাইট কেন প্রথমে আসল বাকি গুলো কেন শেষে থাকল।

কারণ, প্রথমে আসা ওয়েবসাইট গুলোকে সঠিকভাবে এসইও করা হয়েছে। শেষের গুলোতেও করা হয়ছে তবে সম্পূর্ন নয়। সুতরাং, যে সাইটকে সবচেয়ে বেশি এসইও করা হবে সেই সাইটটি ততবেশি রেঙ্কিং করবে।

এখন আপনি যদি আপনার সাইটটিকে সঠিকভাবে এসইও করেন তাহলে কেউ যখন কোন নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে গুগলে সার্চ করবে আর ঐ বিষয়ের উপর যদি আপনার সাইটে কনটেন্ট তাকে তাহলে আপনার সাইটটি রেজাল্ট পেইজে দেখাবে। যেখান থেকে আপনি প্রতিদিন সহজেই অনেক অনেক অর্গানিক ভিজিটর পেতে তাকবেন। এজন্য প্রথমেই আপনার সাইটকে সঠিকভাবে এসইও করতে হবে।

২. সোশিয়াল মিডিয়া শেয়ার

আজকাল সোশিয়াল মিডিয়া ব্যবহার করে না এমন মানুষ হয়ত খুব কমই পাবেন। প্রত্যেকেই কম-বেশি সোশিয়াল মিডিয়া ব্যবহার করে।

আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটটিকে সঠিকভাবে বিভিন্ন সোশিয়াল মিডিয়া (ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইটার, পিন্টারেস্ট ইত্যাদি) গুলোতে মার্কেটিং করে সঠিক গ্রাহকের কাছে পৌছাতে পারেন বা তাদেরকে জানিয়ে দিতে পারেন। তাহলে আপনার ভিজিটর নিয়ে আর চিন্তা করতে হবে না।
এছাড়া আপনার সাইটের নাম দিয়ে বিভিন্ন সোশিয়াল প্লাটফর্মে একাউন্ট বা পেইজ তৈরি করে সেখানে কনটেন্ট গুলো শেয়ার করলে সেখান থেকে ট্রাফিক পেতে পারেন। বেশিরভাগ ওয়েবসাইটের ভিজিটর গুলো তারা সোশিয়াল মিডিয়া গুলো থেকেই পেয়ে থাকে। মনে রাখবেন: নতুন ওয়েবসাইটে ভিজিটর নিয়ে আসার সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হল সোশিয়াল মিডিয়া গুলোতে কনটেন্ট শেয়ার করা।

৩. গেস্ট পোস্টিং করা।

অনেক বড়বড় ওয়েবসাইট আছে যেখানে আপনাকে কনটেন্ট শেয়ার করতে, পোস্ট করতে, কনটেন্ট থেকে লিংক নিতে দিবে। আপনাকে সেই সাইটগুলো খুজে বের করতে হবে। এরপর আপনাকে ঐ সাইট গুলোতে কয়েকটি কনটেন্ট পাবলিশ করতে হবে এবং কনটেন্ট এর মধ্যে বিভিন্ন ওয়ার্ডের সাথে আপনার সাইটে থাকা কনটেন্ট গুলোর সাথে ইন্টারনাল লিংক করে দিতে হবে।
এরপর যখন কেউ ঐ সাইট থেকে আপনার পোস্টটি পড়বে তখন সে আরো বেশি জানার জন্য আপনার করে দেওয়া এনকর টেক্স এ ক্লিক করে আপনার সাইটে চলে আসবে। এভাবে আপনি বিভিন্ন সাইটে গেস্ট পোস্টিং করে আপনার সাইটে অনেক ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারবেন।

৪. ব্লগ কমেন্টিং

ওয়েবসাইটে ভিজিটর বাড়ানোর আরেকটি মাধ্যম হল ব্লগ কমেন্টিং। আপনি বিভিন্ন ব্লগ সাইটে দেখবেন কমেন্ট সেকশন এ ওয়েবসাইট দেওয়ার অপশন আছে। আপনাকে আপনার ব্লগের কনটেন্ট রিলেটেড ব্লগ গুলোতে সুন্দর একটা কমেন্ট করে আপনার ওয়েবসাইট এর এড্রেসটি যুক্ত করে দিবেন। এতে আপনি ঐ ব্লগসাইট থেকে একটি লিংক পাবেন এবং ঐ লিংক থেকে সরাসরি আপনার সাইটে ভিজিটর পাবেন।

৫. ফোরাম পোস্টিং / প্রশ্ন-উত্তর সাইট

অনেক বড়বড় ওয়েবসাইট আছে যেখানে ফোরাম এর সুবিধা থাকে। অনেকেই তাদের অজানা বিষয়ে সেখানে প্রশ্ন করে এবং যে জানে সে উত্তর দেয়। এতে আপনাকে বিভিন্ন ফোরাম থেকে আপনার কনটেন্ট রিলেটেড প্রশ্ন গুলো খুজে বের করতে হবে। এরপর অল্প একটু তথ্য লিখে আপনার কনটেন্টটির লিংক যুক্ত করে দিবেন। এতে কেউ যখন আপনার উত্তরটি দেখবে তখন আরো বেশি জানার জন্য আপনার সাইটে ভিজিট করবে। এভাবে অনেক বেশি ট্রাফিক আপনার সাইটে পাবেন।

৬. ভিডিও মার্কেটিং

ইউটিউব, ভিমিউ এর মত ভিডিও শেয়ারিং সাইট গুলোতে ভিডিও শেয়ার করেও সাইটে ভিজিটর আনা যায়। আপনি যেই ভিডিও গুলো শেয়ার করবেন সেই ভিডিওর ডেসক্রিপশন এ সাইটের লিংকটি দিতে হবে এবং ভিডিওতে বলে দিতে হবে আরো বিস্তারিত জানার জন্য নিছের দেওয়া লিংক এ ভিজিট করুন। এতে অনেকেই জানার জন্য সেই লিংক এ ক্লিক করে আপনার সাইটে ভিজিট করবে আর আপনি অনেক অনেক ভিজিটর পাবেন।

৭. ইমেইল মার্কেটিং

ব্লগ বা ওয়েবসাইটে ভিজিটর পাওয়ার জন্য ইমেইল মার্কেটিং হতে পারে অন্যতম একটি মাধ্যম। বর্তমানে সবাই বিভিন্ন ধরনের তথ্য বা নতুন তথ্য জানার জন্য প্রতিদিন তাদের জিমেইল বক্স গুলো চেক করে থাকে। আপনি তাদের ইমেইল গুলো কালেক্ট করে তাদের কাছে সাইটের কনটেন্ট বা লিংক গুলো শেয়ার করতে পারেন। যেখান থেকেও আপনি সরাসরি ভিজিটর পাবেন।

উপরে বর্ণিত সবগুলো উপায় হল ফ্রি মেথড। এছাড়া আপনি বিভিন্ন পেইড মাধ্যমে আপনার সাইটে ভিজিটর নিয়ে আসতে পারবেন।

এখন আমরা জানব, ওয়েবসাইটের ভিজিটর গুলোকে কিভাবে ধরে রাখবেন।

সাইটে ভিজিটর ধরে রাখার ৪টি উপায়।

১. ইনফরমেটিভ এবং হেল্পফুল কনটেন্ট দেওয়া।

সাধারনত ভিজিটররা আপনার সাইটে আসবে তাদের অজানা বিষয় গুলো জানার জন্য বা নতুন কোন বিষয় সম্পর্কে জানার জন্য। আপনার সাইটের আর্টিকেল গুলো যদি তাদের চাহিদা পূরণ করতে পারে অর্থাৎ তারা যা চায় তা যদি পায়। তাহলে তারা সবসময় আপনার সাইটটি ভিজিট করবে। পাশাপাশি অন্যকেউ কোন বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা আপনার সাইটটি সম্পর্কে বলবে। এজন্য ভিজিটরদের চাহিদা পূরণ হয়মত ইনফরমেটিভ এবং হেল্পফুল কনটেন্ট দেওয়ার চেস্টা করুন।

২. ইউনিক কনটেন্ট পাবলিশ।

অনেক ব্লগসাইটে দেখবেন তারা বিভিন্ন যায়গা থেকে কনটেন্ট কপি করে তাদের ওয়েবসাইটে পাবলিশ করে। আর এটা সম্পূর্ন স্প্যাম। অন্যের কনটেন্ট যখন আপনার সাইটে দিবেন তখন ভিজিটররা যখন জানতে পারবে এই কনটেন্ট গুলো ঐ সাইট থেকে কপি করেছে, তাহলে তারা পরবর্তীতে আপনার সাইটটি ভিজিট নাও করতে পারে। এছাড়া গুগল যদি জানতে পারে এগুলো কপি কনটেন্ট তাহলে আপনার সাইটটি ব্লক করে দিতে পারে। এজন্য আপনাকে সবসময় নতুন কিছু শেয়ার করতে হবে। যাতে সবাই নতুন নতুন বিষয় নিয়ে জানতে পারে।

৩. কমেন্ট সিস্টেম

কমেন্ট সিস্টেম প্রত্যেক ব্লগের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ভিজিটরদের কোন প্রশ্ন তাকলে তারা সরাসরি ব্লগে কমেন্ট করবে এবং আপনাকে যতদ্রুত সম্ভব রিপ্লাই দিতে হবে। এতে আপনার সাইটটির প্রতি একটা ট্রাস্ট অর্জন হবে। তারা সবসময় সাইটটি ভিজিট করবে।

৪. ওয়েব পোশ যুক্ত করা

অনেক ওয়েবসাইটে দেখবেন তাদের সাইটে ভিজিট করলে একটি ওয়েবপোশ আসে এবং তাদের নোটিফিকেশন পাওয়ার জন্য সংযুক্ত করে। এই ধরনের নোটিফিকেশন যখন আপনার সাইটে যুক্ত করবেন তখন ভিজিটররা সেটাতে যুক্ত হবে। আপনি যখন নতুন কোন পোস্ট দিবেন তখন তাদের কাছে একটি নোটিফিকেশন চলে যাবে এবং তারা পোস্টটি পড়ার জন্য আপনার সাইটে চলে আসবে। ভিজিটর ধরে রাখতে, ভিজিটর বাড়াতে এটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

উপরের প্রতিটি বিষয় যদি আপনি সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারেন তাহলে আপনার সাইটে কখনো ভিজিটরের চিন্তা করতে হবে না। ভিজিটর আস্তে আস্তে প্রতিদিন বাড়তেই তাকবে।

আপনার যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট করুন এবং আর্টিকেলটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

0 Shares
Share via
Copy link
Powered by Social Snap