Make Money Trick

ছাত্রদের জন্য অনলাইনে আয় করার সেরা কিছু মাধ্যম ২০২২

বর্তমান এই সময়ে অনলাইন জগৎকে মানুষ আপন করে নিয়েছে। কেনাকাটা থেকে শুরু করে অনলাইনে টিউশনি করা এমনকি অনেকে তো বিয়ের জন্য পাত্র-পাত্রী খুঁজে অনলাইনে পোস্ট করছেন। সেই সাথে পাল্লা দিয়ে এখন সবাই শুধু চায় যে অনলাইন থেকে আয় করতে বা প্রচলিত চাকরি না করে অনলাইনকে নিজের একমাত্র কর্মক্ষেত্র বানাতে। অনেকেই শুধু বড়দের জন্য অনলাইন থেকে আয় করার মাধ্যম গুলো নিয়ে আর্টিকেল লিখে তাই আজ আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করবো “ছাত্রদের জন্য অনলাইনে আয় করার সেরা কিছু মাধ্যম” নিয়ে। আমার এই আর্টিকেল পড়ে সকল ছাত্র-ছাত্রী,,গৃহিণী এবং অবসর প্রাপ্ত কর্মকর্তারা অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। আশা করি আমার সম্পূর্ণ লেখাটি পড়বেন।

অনলাইন ইনকাম কি?

অনলাইনকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন ক্লায়েন্ট দের কাজ কিংবা নিজের কোনো কাজ করে টাকা আয় করাকে অনলাইন ইনকাম বলে। আমি আপনি বেকার থাকলেও খোঁজ নিলে জানতে পারবো হয়ত আমাদের আশেপাশের কেউ কিংবা কাছের কোনো বন্ধু অনলাইনে কোনো সাইট বা এপসে কাজ করে মাস শেষে ৫-১০ হাজার টাকা কামিয়ে নিচ্ছে অথচ আমরা কিছুই জানি না। 

আমরা যারা লেখাপড়া করছি এবং এখনো টাকা আয় করতে পারি না তাদের সকলেরই ইচ্ছা অবসর সময়কে কাজে লাগিয়ে অনলাইনে সহজ সহজ কিছু কাজ করে টাকা আয় করতে কিন্তু সমস্যা হলো কি কাজ করবো? কিভাবে করবো?  কত টাকা পাবো? এসব বিষয় নিয়ে কেউ আমাদের সাহায্য করে না বা কেউ বলতে চাই না। তাই আমি আপনাদের শেয়ার করবো ছাত্রজীবনে অনলাইন থেকে আয় করার সেরা কিছু উপায়। কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করা যাকঃ

ছাত্রদের জন্য অনলাইনে আয় করার সেরা কিছু মাধ্যম ২০২২

 

আপনার কাছে যদি একটি মোবাইল বা কম্পিউটার এবং নেট কানেকশন থাকে তাহলে আপনি খুব সহজেই অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন। মোবাইল দিয়েও আয় করা যায় কথাটি শুনে হয়ত আপনার প্রশ্ন জাগতে পারে যে মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে আয় করা যায় এমন কথা তো শুনি নি, এটা কিভাবে সম্ভব??

জ্বি হ্যাঁ অনলাইনে এমন কিছু জনপ্রিয় কাজ আছে যেগুলো মোবাইল দিয়েই করা যায় এবং আয় করা যায়। আপনার যদি কাজ করার ইচ্ছা থাকে তাহলে মোবাইল দিয়ে সহজ সহজ কাজ গুলো করে টাকা আয় করতে পারবেন।

কথা না বাড়িয়ে চলুন মেইন পোস্টে চলে যাই।

১/ ব্লগিং-

আমি সবসময়ই বলি যদি অনলাইন থেকে আয় করার সবচেয়ে কার্যকরী উপায় হলো ব্লগিং করা। আপনি যদি নিজের একটা ব্লগ খুলে তাতে নিয়মিত আর্টিকেল পাবলিশ করে যেতে পারেন তাহলে আপনি তা থেকে প্রতি মাসে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন। এটা একটি পুরাতন পদ্ধতি হলেও আপনি যদি সঠিক নিয়মে কাজ করতে পারেন তাহলে আপনি একজন ব্লগার হিসেবে সফলতা অর্জন করতে পারবেন। আপনি চাইলে গুগল ব্লগার এর মাধ্যমে খুব সহজেই একটি ব্লগতৈরি করে নিতে পারবেন এবং সেখানে মোবাইল দিয়েই কাজ করতে পারবেন। আপনার বাজেট যদি ভালো থাকে তাহলে আপনি ডোমেইন-হোস্টিং কিনেও ব্লগ বানাতে পারবেন।

আপনার ব্লগটি জনপ্রিয় হলে তা থেকে আপনি আপনার সারা জীবন টাকা আয় করতে পারবেন ঘরে বসে থেকেই।

ব্লগ থেকে আয় করার উপায় গুলো হচ্ছেঃ
* গুগল এডসেন্স- 

আপনার সাইটে কিছু ভিজিটর থাকলে এবং কিছু ইউনিক ভিজিটর থাকলে আপনি গুগল এডসেন্স দ্বারা আপনার ব্লগটি মনিটাইজ করে তার মাধ্যমে আয় করে নিতে পারবেন।

* এড স্পেস সেল করে-

আপনার ব্লগের কোনো একটি জায়গায় অন্য একটি সাইট বা কম্পানির ব্যানার বসিয়ে তাদের থেকে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন।

* অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং –

আপনি অ্যামাজন সহ আরো বিভিন্ন জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইট গুলোর প্রোডাক্ট আপনার ব্লগ এর মাধ্যমে বিক্রি করে তা থেকে আয় করতে পারবেন।

২/ ইউটিউবিং

 

আপনি যদি একজন ছাত্র হয়ে থাকেন এবং আপনার কাছে যদি একটি মেবাইল থাকে তাহলে আপনি ইউটিউবে একটি চ্যানেল খুলে তাতে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করে তা থেকে আয় করতে পারবেন। বাংলাদেশের অনেক যুবক-যুবতী ইউটিউবে কাজ করে হাজার টাকা এমনকি অনেক ভালো ভালো ইউটিউবাররা লক্ষাধিক টাকার আয় করতে পারবেন। আপনার ইউটিউব চ্যানেলকে গুগল এডসেন্স দ্বারা এপ্রোভ করে আপনার ভিউয়ার্স দের এড দেখিয়ে তা থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। এমনকি আপনি অ্যাফিলিয়েট করে বা অন্যের প্রোডাক্ট বা লিংক প্রমোট করেও ইউটিউব থেকে আয় করতে পারবেন।

৩/ ফেসবুক পেইজ

আমরা সকলেই কম বেশি ফেসবুক ব্যবহার করি। কেউবা আবার সব কাজ কর্ম ফেলে ফেসবুকের নিউজ ফিডে ঘুরাঘুরি করে। কেমন হতো যদি ফেসবুককে কাজে লাগিয়ে বা ফেসবুক এর মাধ্যমে টাকা আয় করা যেত!!!

কি,বিশ্বাস হচ্ছে না তো যে ফেসবুক থেকেও আয় করা যায়। 

আপনি যদি কিছু নিয়ম মেনে কাজ করেন তাহলে আপনার নিজস্ব ফেসবুক পেইজ থেকে আয় করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে নিয়মিত ইউনিক বা আপনি নিজে তৈরি করেছেন এমন সব ভিডিও আপলোড করতে হবে। আপনার পেইজের ফলোয়ার যখন ১০,০০০ হবে এবং গত ৬০ দিনে যদি আপনার ভিডিও গুলো মোট ৩০,০০০ হাজার দেখা হয়ে থাকে তা আপনার পেইজটি মনিটাইজ করে আয় করতে পারবেন। ছাত্রদের অনলাইনে আয় করার সেরা উপায় গুলোর মাঝে এটি একটি অন্যতম উপায়

৪/ আর্টিকেল লিখে আয়

আমরা অনেকেই আছি যাদের লেখালেখি করতে ভালো লাগে। হয়ত অনেকেই এই প্রতিভাকে কাজে লাগাতে পারি না। অনেকেই আবার ফেসবুকে গিয়ে অনেক লেখালেখি করেন। কিন্তু সত্যি কথা হলো ফেসবুকে আপনি ভালো ভালো গল্প লেখলেও আপনার লেখাকে কেউ দাম দিবে না। তবে আপনার জন্য অনলাইনে অনেক গুলো মার্কেটপ্লেস আছে যেগুলোতে আপনার লেখা বিক্রি করে আপনি মাসে ৫০০০-১০০০০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আর যদি আপনি ইংরেজিতে আর্টিকেল লিখতে পারেন তাহলে আয়ের পরিমাণটা আরো বেড়ে যাবে। আপনি আর্টিকেল লেখার বিষয়ে সবকিছু জেনে ফাইভার,আপওয়ার্ক,ফ্রিল্যান্সার সহ ইত্যাদি সাইট গুলোতে গিয়ে একটি অ্যাকাউন্ট করে আপনার লেখা বিক্রি করতে পারবেন এবং আয় করতে পারবেন।

৫/ ছবি তুলে আয়

আমি প্রায় সব সময়ই বলি যে ছাত্রদের জন্য অনলাইন থেকে আয় করার একটি সহজ উপায় হলো ছবি তুলে বা ছবি বিক্রি করে আয়। আমরা প্রতদিনই অনেক ছবি তুলে সেগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করি। হয়ত সেখান থেকে কিছু লাইক,কমেন্ট পাই কিন্তু তার বেশি কোনো লাভ হয়না। তবে আপনি যদি একটু নিয়ম মেনে ভালো ভালো ছবি তুলতে পারেন তাহলে সেগুলো বিক্রি করে আয় করতে পারবেন। ছবি গুলো বিক্রি করার জন্য গুগলে সার্চ দিলেই অনেক গুলো সাইট এর নাম আপনার সামনে চলে আসবে। অনেক সময় কিছু কিছু ছবি মিলিয়ন ডলার দিয়ে বিক্রি হয়েছে। বুঝতেই পাইছেন এই সেক্টরে একটু ভালো কাজ করলেই সফল হওয়ার চান্সই বেশি।

সবশেষ কথাঃ

আমি উপরে ছাত্রদের জন্য  অনলাইনে আয় করার সেরা কিছু মাধ্যম নিয়ে কথা বলেছি। আমি আপনাদের সামনে সহজ এবং সেরা ৫ টি মাধ্যম তুলে ধরার চেষ্টা করেছি যে গুলো প্রয়োগ করে আপনি ছাত্র অবস্থায় আয় করতে পারবেন এবং মন দিয়ে আয় করলে তা থেকে সারা জীবন আয় করার সম্ভাবনা আছে। 

 

শুধু শুধু ফেসবুক বা ইউটিউবে সময় না কাটিয়ে এসব মাধ্যমে কাজ করে আপনি অনলাইন থেকে আয় করা শুরু করে দিন তাহলে কেউ আপনাকে আর বেকার বলতে পারবে না।

আমার আর্টিকেল টি কেমন লাগলো কমেন্ট করে জানাবেন। সময় নিয়ে পড়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button